ঢাকা, সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

2018-11-19

, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

টুঙ্গিপাড়ায় মালিকের অস্ত্রোপচারে প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ

প্রকাশিত: ০৪:৩৬ , ২৪ আগস্ট ২০১৮ আপডেট: ০৪:৩৬ , ২৪ আগস্ট ২০১৮

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি: গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় একটি বেসরকারি হাসপাতালের মালিক অস্ত্রোপচার করায় এক প্রসূতির মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার রাতে টুঙ্গিপাড়া সার্জিক্যাল হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। এঘটনায় হাসপাতালের মালিক ও তার দুই ছেলের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেছে প্রসূতির পরিবার। এরইমধ্যে মালিকের এক ছেলে গ্রেপ্তার হয়েছে। 

মৃত রেক্সনা বেগম (৩০) টুঙ্গিপাড়া উপজেলার কেরালকোপা গ্রামের মো.আজিজুল মোল্লার স্ত্রী।

মামলায় হাসপাতালের মালিক নুরুল হুদা টুকু এবং তার দুই ছেলে মো.মেহেরাব হোসেন ও মো.নুরুল অদিরনকে আসামি করা হয়েছে।  

মৃত রেক্সনার ভাই আমিনুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, তার অন্তঃসত্ত্বা বোনকে বৃহস্পতিবার বেলা দুইটার দিকে টুঙ্গিপাড়া সার্জিক্যাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাত নয়টার দিকে হাসপাতালের মালিক টুকু ও তার দুই ছেলে রেক্সনাকে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যায়। তখন হাসপাতালে কোনো চিকিৎসক ছিল না। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তার বোন অপারেশন টেবিলেই মারা যায় বলে জানান তিনি। 

আমিনুল জানান, ক্লিনিক মালিক টুকু চিকিৎসক না হলেও এলাকায় ‘পল্লি চিকিৎসক’ হিসেবে পরিচিত। অপারেশনের সময় তার দুই ছেলে তাকে সহযোগিতা করেন। ওই হাসপাতালে এর আগেও চারজন প্রসূতির মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। 

এদিকে, টুঙ্গিপাড়া থানার ওসি এ কেএম এনামুল কবীর সাংবাদিকদের জানান, মামলার পর শুক্রবার সকালে মেহেরাব হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। 
এ বিষয়ে হাসপাতাল মালিক নুরুল হুদা টুকু সাংবাদিকদের বলেন, “অপারেশনের সময় আমি ও আমার প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত দুই ছেলের সাথে গাইনী বিশেষজ্ঞ ডাক্তার সাধন বসু ছিলেন। অপারেশেনের শেষ পর্যায়ে রোগীর শারীরিক অবস্থা খারাপ দেখে সাধন হাসপাতাল থেকে চলে যান।” 

টুঙ্গিপাড়ার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা নিয়াজ মোহাম্মদ জানান, সাধন বসু নামে কোনো চিকিৎসক গোপালগঞ্জে নেই। নিজেকে বাঁচাতে নুরুল হুদা টুকু সাজানো কথা বলছেন।

এই বিভাগের আরো খবর

পারিবারিক বিরোধেই আশুলিয়ায় বাবাকে ফেলে দিয়ে মেয়েকে হত্যা: পুলিশ

সাভার প্রতিনিধি: পারিবারিক বিরোধের জেরেই সাভারের আশুলিয়ায় চলন্ত বাস থেকে বাবাকে ফেলে দিয়ে মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is