ঢাকা, রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

2018-11-18

, ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

মন জুড়ানো নৈসর্গিক সৌন্দর্যে ভরা ‘হামহাম জলপ্রপাত’

প্রকাশিত: ০৮:৪২ , ১৬ আগস্ট ২০১৮ আপডেট: ০৮:৪২ , ১৬ আগস্ট ২০১৮

ডেস্ক প্রতিবেদন: হামহাম জলপ্রপাত। মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় নৈসর্গিক এই জলপ্রপাতের অবস্থান। হামহাম জলপ্রপাত প্রকৃতিপ্রেমীদের জন্য একটি দৃষ্টিনন্দন আদর্শ স্থান। চারদিকে ঘন জঙ্গল, বাঁশবন, ছোটবড় পাহাড়। কখনও বেশ খাড়া পথ বেয়ে নিচে নামতে হয়। প্রচণ্ড ঝুঁকিপূর্ণ রাস্তা পেরিয়ে এই স্থানে পৌঁছাতে হয়। 

এখানে গিয়ে যখন সোজা তাকাবেন প্রায় ১৬০ ফিট ওপর থেকে নেমে আসা জলরাশির সেই অসম্ভব সুন্দর দৃশ্য দেখে প্রায় বাকরুদ্ধ হয়ে পড়বেন কিছুক্ষণ। প্রবল ধারায় উপর থেকে গড়িয়ে পড়ছে পানি। চারদিকে হিমশীতল পরিবেশ। এক নাগাড়ে ঝরনার পানি পড়ে যাচ্ছে ছোটবড় পাথরের ওপর। 

কিভাবে যাবেন : 
ঢাকার সায়েদাবাদ বা মহাখালী বাসস্ট্যান্ড থেকে মৌলভীবাজার যাওয়ার সরাসরি বাস আছে। ভাড়া ৪০০-৪৫০ টাকা। এছাড়া শ্রীমঙ্গল থেকেও যাওয়া যায়। মৌলভীবাজার থেকে যেতে হবে কমলগঞ্জ। সেখান থেকে আদমপুর বাজার, বাস ভাড়া ১৫-২০ টাকা। এখান থেকে ২০০-২৫০ টাকা সিএনজি ভাড়ায় পৌঁছে যেতে পারেন আদিবাসী বস্তি তৈলংবাড় বা কলাবনপাড়ায়। এরপর হাঁটা রাস্তা। প্রায় আট কিলোমিটারের মতো পাহাড়ি পথ শেষে হামহাম ঝর্ণার দেখা মিলবে। 
 
কোথায় থাকবেন: 
হামাহাম জলপ্রপাত দেখে শ্রীমঙ্গল ফিরে আসতে হবে। তবে সন্ধ্যা হলে এই সময়টায় ফেরার সম্ভাবনা খুব একটা বেশি থাকেনা। সেক্ষেত্রে আদিবাসীদের বাড়িতে থাকা যায়। যদি শ্রীমঙ্গল ফেরা না যায় তবে দুঃচিন্তার কোনো কারণ নেই। কেননা তৈলংবাড় বস্তি বা কলাবনপাড়ায় থাকার ব্যবস্থা হয়ে যাবে।

যাওয়ার আগে অবশ্যই কলাবনপাড়ার স্থানীয়দের কাছ থেকে ভালো-মন্দ জেনে যাওয়া উচিৎ। জোঁকের আক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে সঙ্গে সরিষার তেল আর লবণ রাখতে হবে। এছাড়া, সঙ্গে শুকনা খাবার, বিশুদ্ধ পানি আর খাবার স্যালাইন নিয়ে যাবেন। 
 

এই বিভাগের আরো খবর

ঘুরে আসুন মেঘের রাজ্য নীলগিরি

ডেস্ক প্রতিবেদন: প্রকৃতির এক অনন্য দান বান্দরবানের নীলগিরি। যেখানে গেলে দেখতে পারবেন মেঘ আর পাহাড়ের মিতালী। যেখানে মেঘেরা আপন থেকে ছুঁয়ে...

দেশে ফিরেছেন রাষ্ট্রপতি

নিজস্ব প্রতিবেদক: ৫ দিনের রাষ্ট্রীয় সফর শেষে দেশে ফিরেছেন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আব্দুল হামিদ। সকাল সোয়া ৮টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is