ঢাবি সলিমুল্লাহ হলে ছাত্রলীগের দুই গ্র“পের সংঘর্ষে আহত ১০ আপডেট: ০৪:৩৫, ২১ এপ্রিল ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সলিমুল্লাহ মুসলিম হলে আসন দখলকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের হল সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রাত ১১ টার দিকে হল ছাত্রলীগের সভাপতি তাহসান আহমেদ রাসেল ও সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান তাপসের সমর্থকদের মধ্যে এই সংঘর্ষ হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আমজাদ আলী জানান, এই ঘটনায় যারা জড়িত আছেন তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আহতদের মধ্যে অনেককে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারে রাখা হয়েছে। বাকিরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, হলের টেলিভিশন কক্ষের উপরে দ্বিতীয় তলার বারান্দার একটি কক্ষের আসন নিয়ে বুধবার রাসেল ও তাপসের সমর্থকদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়।

সে সময় তাপসের সমর্থক একজনকে মারধর করা হলে বৃহস্পতিবার রাতে দুই পক্ষ হলের মধ্যে সংঘর্ষে জড়ায়।

এ সময় রড ও লাঠি নিয়ে দুই পক্ষের নেতাকর্মীদের পরস্পরের ওপর চড়াও হতে দেখা যায় বলে জানান প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন শিক্ষার্থী।

পরে সভাপতি রাসেলের সমর্থকরা টিভি রুমের ওপরে দ্বিতীয় তলায় অবস্থান নেয় এবং সাধারণ সম্পাদক তাপসের সমর্থকরা মাঠে অবস্থান নেয়। গভীর রাতে বেশ কিছু সময় দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া এবং ঢিল ছোড়াছুড়ি চলে।

পরে প্রক্টর আমজাদ আলী এবং বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসান ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনেন।

সংঘর্ষের মধ্যে দ্বিতীয় তলার বারান্দায় তাপসের সমর্থকদের দশটি কক্ষ ভাংচুর করা হয়। ঢিল লেগে ভেঙে যায় বেশ কয়েকটি জানালার কাঁচ।

সাধারণ সম্পাদকের সমর্থকদের তিনটি ল্যাপটপও চুরি হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন শিক্ষার্থীরা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে হল ছাত্রলীগের সভাপতি তাহসান আহমেদ রাসেল সাংবাদিকদের জানান, সিট নিয়ে ঝামেলা হয়েছিল। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
 

 

Publisher : Naimul Hasib