পরিত্যক্ত রেলস্টেশন এখন মাদকসেবীদের আখরা আপডেট: ০৯:২৫, ২১ এপ্রিল ২০১৭

ফেনী প্রতিনিধি: দীর্ঘ ২০ বছর ধরে বন্ধ থাকায় ফেনী-বিলোনিয়া রেলপথের পরিত্যক্ত স্টেশনগুলো পরিণত হয়েছে মাদকসেবীদের আখরায়। চুরি হয়ে যাচ্ছে লাইন, স্লিপারসহ মূল্যবান সম্পদ। আর খাস জমির দখল নিচ্ছে প্রভাবশালী মহল। বিষয়টি মন্ত্রণালয়কে জানানো হলেও কোন কাজে আসেনি বলে জানান স্থানীয় কর্মকর্তারা। এদিকে, আবারো রেলপথটি চালুর দাবি জানিয়েছে এলাকাবাসী।

১৯২৯ সালে তৎকালীন বৃটিশ সরকার নির্মাণ করে ২৭ কিলোমিটার দীর্ঘ ফেনী-বিলোনিয়া রেলপথ। শুরুতে ৮টি স্টেশন নিয়ে যাত্রা করলেও পরে উন্নীত করা ১০টিতে। ফেনী, কুমিল্লা, চট্টগ্রামসহ আশপাশ এলাকায় শিক্ষা ও ব্যবসা-বাণিজ্যসহ অর্থনৈতিক উন্নয়নের একমাত্র যোগাযোগমাধ্যম ছিল এই রেলপথ।

অব্যাহত লোকসানের মুখে ১৯৯৭ সালের ১৭ অগাস্ট রেলপথটি বন্ধ করে দেয়া হয়। কর্মচারীদের বদলি করা হয় বিভিন্ন স্থানে। ফলে, পরিত্যক্ত রেলস্টেশনগুলো পরিণত হয়েছে মাদকসেবীদের আখড়ায়।

অনেক জায়গা থেকে ইতোমধ্যেই লাইন, স্লিপারসহ স্টেশনের দরজা, জানালা চুরি হয়ে গেছে। এছাড়া, লাইনের আশপাশের খাস জমি এখন প্রভাবশালীদের দখলে।

বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হলেও কোন কাজে আসেনি বলে জানান ফেনী রেলওয়ে জংশন ষ্টেশান মাষ্টার মাহবুবুর রহমান।

এদিকে, রেলপথটি আবারো চালুর দাবি জানিয়ে আসছে এলাকাবাসী। এবিষয়ে শিগগিরই ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন জেলা প্রশাসক আমিনুল উল আহসান।

পরশুরামে ভারত-বাংলাদেশ সীমাস্তে বিলোনিয়া স্থলবন্দর রয়েছে। এই বন্দর দিয়ে দিন দিন বাড়ছে আমদানি-রপ্তানি। তাই রেলপথটি চালু হলে যাতায়াত সুবিধার পাশাপাশি বাড়বে ভারতের ত্রিপুরার সাথে বাংলাদেশের দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য।

 

Publisher : .