ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৫ আশ্বিন ১৪২৫

2018-09-20

, ৯ মহাররম ১৪৪০

কাল মন্ত্রিসভায় উঠছে সড়ক পরিবহন আইনের খসড়া

প্রকাশিত: ০২:২৩ , ০৫ আগস্ট ২০১৮ আপডেট: ১০:৫২ , ০৫ আগস্ট ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক : সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুর জন্য দায়ি চালকদের সাজার মেয়াদ বাড়িয়ে সড়ক পরিবহন আইনের খসড়া আগামীকাল মন্ত্রিসভায় উঠছে। আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জানান, এই সাজা আরো বাড়তে পারে। দুর্ঘটনার অপরাধ বিবেচনায় কিছু ঘটনাকে দ্রুত বিচার আইনে বিচার করার বিধান থাকছে নতুন আইনে।

১৯৮৩ সালের মোটর ভেহিক্যাল অর্ডিন্যান্স অনুযায়ী চলছে বর্তমান পরিবহন খাত। সামরিক সরকারের কিছু অর্ডিন্যান্স ইংরেজি থেকে বাংলায় করার উদ্যোগের অংশ হিসেবে এই অর্ডিন্যান্সটি সড়ক পরিবহন আইন গত বছর ২৭ মার্চ মন্ত্রিসভায় নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়। যাতে বেপরোয়া গাড়ি চালানো, দুর্ঘটনা ও মৃত্যুর জন্য সাজা ও জরিমানা বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়। কিন্তু, দেড় বছরেও চুড়ান্ত অনুমোদন পায়নি। পয়লা আগষ্ট প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে মন্ত্রিসভায় অনুমোদনের জন্য আইনটি চূড়ান্ত করা হয়েছে।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বৈশাখী টেলিভিশনকে জানান, সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোর সাথে কথা বলে আইনটি চূড়ান্ত করা হয়েছে। মন্ত্রিসভায় উত্থাপনের জন্য প্রস্তাবিত আইনটি সড়ক পরিবহন মন্ত্রনালয়ে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

নতুন এই আইনে গাড়ির বেপরোয়া গতির কারণে দুর্ঘটনায় নিহত বা আহত হলে চালকের সর্বোচ্চ শাস্তি ২ বছর থেকে বাড়িয়ে ৫ বছর জেল আর পাঁচ লাখ টাকা জরিমানার প্রস্তাব করা হয়েছে। মন্ত্রিসভায় গিয়ে এই সাজা আরো বাড়তে পারে বলে ইঙ্গিত দেন আইনমন্ত্রী।

তবে, বাস চাপায় শহীদ রমিজউদ্দীন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুকে দুর্ঘটনা নয়, এটি হত্যাকান্ড উল্লেখ করে আইনমন্ত্রী বলেন, এ ধরনের ঘটনা দ্রুত বিচার আইনে বিচার করা হবে।

দ্রুত বিচার আইনে বিচার করে সাজা নিশ্চিত করার মধ্য দিয়ে এ ধরনের ঘটনা বন্ধ হবে বলে আশা করেন আইনমন্ত্রী।

 

এই বিভাগের আরো খবর

সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত আদালতে যাবেন না খালেদা জিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক : শারীরিকভাবে পুরোপুরি সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত আদালতে যাবেন না বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। মঙ্গলবার বিকেলে, পুরোন...

কেরানীগঞ্জে বাবা-ছেলে হত্যা মামলায় ৫ জনের মৃতুদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক: ১৯৯৩ সালে কেরানীগঞ্জে বাবা-ছেলের হত্যা মামলায় পাঁচজনকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সাথে আসামিদের প্রত্যেককে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is