ঢাকা, সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯ আশ্বিন ১৪২৫

2018-09-24

, ১৩ মহাররম ১৪৪০

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পণ্য রপ্তানি শূন্যের কোঠায়

প্রকাশিত: ১০:৪৮ , ০৩ আগস্ট ২০১৮ আপডেট: ১২:২৬ , ০৩ আগস্ট ২০১৮

হিলি প্রতিনিধি: ভারতে বাংলাদেশি পণ্যের যথেষ্ট চাহিদা থাকলেও হিলি স্থলবন্দর দিয়ে রপ্তানির পরিমাণ নেমে এসেছে শুণ্যের কোঠায়। বিগত বছরগুলোতে এই বন্দর দিয়ে পণ্য রপ্তানির মাধ্যমে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা আয় হলেও সে খাতে আয় এখন অনেক কম। ব্যবসায়ীরা বলছেন বন্দরের সড়ক ও অবকাঠামো উন্নয়নসহ দু’দেশের কাস্টমস কর্তৃপক্ষ যথাযথ গুরুত্ব দিলে হিলি বন্দর দিয়ে আবারো বাড়বে পণ্য রপ্তানি।

আমদানি-রপ্তানি সম্ভাবনাময় দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম বাণিজ্য কেন্দ্র হিলি স্থলবন্দর। চাহিদা অনুযায়ী এ বন্দর দিয়ে আসছে পেঁয়াজ, রসুন, আদা, পাথর, চাল, মটরযানের যন্ত্রাংশসহ বিভিন্ন পন্য সামগ্রী। তবে আমদানি খাত ঠিক থাকলেও হিলি বন্দর দিয়ে রপ্তানি হয় নামমাত্র কয়েকটি পণ্য।

ভারতে বাংলাদেশি রাইসব্র্যান অয়েল, চিটাগুড়, ঝুট, সুতা, কলা, শাকসবজি, পেঁয়াজের ফুল, কৃষি পণ্য ও কৃষিযন্ত্রপাতি, প্লাষ্টিকজাত পণ্যসহ নানা পণ্যের যথেষ্ট চাহিদা রয়েছে। কিন্তু হিলি বন্দর দিয়ে কেবল রাইসব্র্যান অয়েল, সুতা ও পানির পাম্প রপ্তানি হয় ভারতে।

এ অবস্থায় রপ্তানি খাতে রাজস্ব আয়ও কমেছে উল্লেখযোগ্য হারে। হিলি কাস্টমসের হিসেবে গেলো অর্থবছরে আমদানি খাত থেকে বন্দরে রাজস্ব আয় হয়েছে প্রায় ২শ’ কোটি টাকা। যেখানে রপ্তানি খাতে আয় মাত্র ১৩ কোটি ২৭ লাখ ৪৪ হাজার টাকা।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, বন্দরের সড়ক ও অবকাঠামোগত উন্নয়ন এবং দু-দেশের কাস্টমস কর্তৃপক্ষ বিষয়টিতে গুরুত্ব দিলে এ অবস্থার পরিবর্তন হতে পারে।

দেশে উৎপাদিত পণ্য হিলি বন্দর দিয়ে রপ্তানি বাড়িয়ে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে সরকার এগিয়ে আসবে বলে আশাবাদি সংশ্লিষ্টরা।

 

 

এই বিভাগের আরো খবর

জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়াকে ‘জাতীয়তাবাদী সাম্প্রদায়িক ঐক্য’ বললেন সেতুমন্ত্রী

কক্সবাজার প্রতিনিধি: সরকার বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়াকে ‘জাতীয়তাবাদী সাম্প্রদায়িক ঐক্য’ বলে আখ্যা দিলেন আওয়ামী...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is