ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫

2018-09-25

, ১৪ মহাররম ১৪৪০

বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যার ষড়যন্ত্রে একজোট হয়েছিল বিশ্বাসঘাতকরা

প্রকাশিত: ০৯:০১ , ০১ আগস্ট ২০১৮ আপডেট: ০৩:৪০ , ০৬ আগস্ট ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: ১৯৪৭ সালে জন্ম নেয়া পাকিস্তানে রাজনৈতিক ও গণতান্ত্রিক শাসনের চর্চা ছিলনা বললেই চলে। মূলত সামরিক স্বৈারাচার নিয়ন্ত্রিত হয়ে পড়েছিল পাকিস্তান। যার বিরুদ্ধে বাঙালিরা অবিরাম লড়াই সংগ্রাম করে। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে স্বাধীনতা ও মুক্তির জন্য একাত্তরে রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠা করে বাংলাদেশ রাষ্ট্র। কিন্তু মাত্র সাড়ে তিন বছরের মাথায় বিশ্বাসঘাতকরা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানকে হত্যা করে। তারা বাংলাদেশের রাজনৈতিক শাসন ব্যবস্থার চর্চাকে ধ্বংস করে পাকিস্তানী কায়দার সামরিক শাসন আনার আয়োজন করে।
বৃটিশরা যখন যায়, তখন ১৯৪৭ সালে ভারত ভেঙ্গে নতুন রাস্ট্র পাকিস্তান হয়। আজকের বাংলাদেশ ছিল তখন নতুন পাকিস্তান রাষ্ট্রের পূর্ব অংশ।
 পাকিস্তান পরিচালনায় রাজনীতি ও গণতন্ত্রের চর্চা ছিল বহু আকাঙ্খিত বিষয়। কিন্তু পাকিস্তান জন্মের শুরু থেকেই পশ্চিম পাকিস্তানী শাসকরা অধিকার বঞ্চিত করতে বাঙালীদের ওপর বহুমুখী নিপীড়ন চালাতে শুরু করে  
১৯৫১ সাল থেকে  রাজনীতি ও গণতন্ত্রকে ধ্বংস করতে প্রথম সামরিক অভ্যূথ্যনের ব্যর্থ চেষ্টা হয়, পড়ে তা সফল হয় ১৯৫৮ সালে। সেই থেকে ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীনের সময় পর্যন্তও, পাকিস্তান রাষ্ট্র পরিচালনায় রাজনীতি ও গণতন্ত্র ফিরতে পারেনি।
১৯৭১ সালে লক্ষ লক্ষ প্রাণের বিনিময়ে সামরিক শাসনের যাতাকল থেকে বাংলাদেশের মানুষকে মুক্ত স্বদেশ এনে দেন অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান। এই মুক্তি ও স্বাধীনতাকে শক্ত রাজনৈতিক ভিতের ওপর দাঁড় করাতে বঙ্গবন্ধুর সকল চেষ্টা শুরু থেকেই নস্যাত করার নানা ষড়যন্ত্র চলতে থাকে। অবশেষে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট স্বপরিবারে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে। বাংলাদেশের ইতিহাসে বর্বরতম এই রাজনৈতিক হত্যকান্ডের  ষড়যন্ত্রে রাজনৈতিক ও সামরিক অঙ্গনের  কতিপয় বিশ্বাসঘাতক একজোট হয়েছিল।
হত্যাকান্ডের পর দৃশ্যত কতিপয় রাজনৈতিক বিশ্বাস ঘাতক ক্ষমতা নিলেও তারা সশস্ত্র বাহিনীকে নিয়ে এসেছিল রাষ্ট্র পরিচালনার আসনে। যা রাজনৈতিক বিশে¬ষজ্ঞদের মতে, মূলত ছিল পাকিস্তানি আদলে বাংলাদেশেও সামরিক শাসন প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে রাজনীতি ও গণতান্ত্রিক চর্চাকে ধ্বংস করা।   

 

এই বিভাগের আরো খবর

১৫ আগস্টের পর প্রশ্নবিদ্ধ ও কলঙ্কিত করা হয় বিচার বিভাগকে

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশের বিচার বিভাগ সংবিধানের রক্ষক। কিন্তু ১৯৭৫ সালের আগস্টে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দেশের বিচার বিভাগ ও সর্বোচ্চ আদালতের...

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর যুদ্ধাপরাধীর পক্ষে অবস্থান নেয় সুবিধাভোগী সরকারগুলো

নিজস্ব প্রতিবেদক: বঙ্গবন্ধুর ডাকে বাংলাদেশ স্বাধীন করতে দেশের স্বাধীনতাকামী মানুষ অবর্ণনীয় দুঃখ, দুর্দশা, কষ্ট ও ক্ষতিকে সাহসের সাথে বরণ...

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পরপরই পাকিস্তান বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয়

নিজস্ব প্রতিবেদক: বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর খুনিদের সরকার একাত্তরে মহান মুক্তিযুদ্ধে পরাজিত পাকিস্তানের সাথে সখ্যতা গড়ে তোলার উদ্যোগ নেয়।...

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতি গড়ে উঠে

নিজস্ব প্রতিবেদক: বঙ্গবন্ধুকে হত্যা পরবর্তী সুবিধাভোগী খুনী সরকারগুলি আরেকটি ভয়ংকর কলংকজনক চর্চার প্রচলন করে। যা দেশে বিচারহীনতার...

বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের পর রচিত হয় হত্যার কলঙ্কজনক রাজনীতির

নিজস্ব প্রতিবেদক: বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের পর একদিকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষের রাজনীতিকদের অস্তিত্ব বিপন্ন করে খুনী প্রশাসন, অন্যদিকে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is