বার্সেলোনার বিদায় আপডেট: ০৮:০২, ২০ এপ্রিল ২০১৭

ক্রীড়া ডেস্ক: চ্যাম্পিয়নস লিগে বার্সেলোনার বিদায় করে শেষ চারে জায়গা করে নিলো জুভেন্টাস। এক সপ্তাহ আগে তুরিনে জুভেন্টাসের কাছে ৩-০ গোলে হেরেই বার্সেলোনার বিদায়-ঘণ্টা বাজতে শুরু করে। বাকি ছিল কেবল দ্বিতীয় লেগের আনুষ্ঠানিকতা। আজ ন্যু ক্যাম্পে সেই আনুষ্ঠানিকতা শেষ হল।

ম্যাচের স্কোরলাইন ০-০ হওয়ায় ৩-০ গোলের ব্যবধানেই বার্সাকে টপকে ইউরোপ সেরা হওয়ার লড়াইয়ে জুভেন্টাস উঠে গেল শেষ চারে। যদিও বার্সার হাতে সুযোগ ছিলো, বার্সেলোনাকে ম্যাচটি জিততে হতো ৪ গোলের ব্যবধানে। পিএসজির সঙ্গে দ্বিতীয় রাউন্ডের প্রথম লেগে ৪-০ গোলে হারলেও দ্বিতীয় লেগে ৬-১ গোলে জিতে মেসিরা অলৌকিকভাবেই শেষ আটে জায়গা করে নেয়।

 গোল না করতে পাড়লেও ম্যাচটা দুর্দান্তই খেলেছে বার্সা। আক্রমণের পর আক্রমণ করে জুভেন্টাসের রক্ষণভাগকে ব্যতিব্যস্তই রেখেছিল তারা। কিন্তু জর্জো কিয়েলিনি, দানি আলভেস, লিওনার্দো বনুচ্চিদের নিয়ে গড়া জুভেন্টাসের রক্ষণ চাপটা সামলেছে বেশ ভালোভাবেই। তবে গোলের সুযোগ এসেছে বেশ কয়েকবার। তবে মসি-নেইমার-সুয়ারেজ-ইনিয়েস্তারা সে সুযোগগুলো কাজে লাগাতে পারেননি।

১৯তম মিনিটে ডি-বক্সের ভেতর থেকে মেসির শটে বল ডান পোস্টের সামান্য বাইরে দিয়ে যায়। দুই মিনিট পর আলবার ক্রস থেকে এবার নেইমার নেন লক্ষ্যভ্রষ্ট শট। ৩০তম মিনিটে মেসির শট ফিরিয়ে ম্যাচে প্রথম সেভ করেন এবারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে আগের নয় ম্যাচে মাত্র দুইবার গোল খাওয়া জানলুইজি বুফ্ফন। আট মিনিট পর অপর প্রান্তে বিপজ্জনক জায়গা থেকে হিগুয়াইনের ভলি ঠেকাতেও কোনো সমস্যা হয়নি মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেনের। বিরতির খানিক আগে বাঁ দিক থেকে নেইমারের ক্রসে সুয়ারেস চেষ্টা করেও ঠিকমতো সংযোগ ঘটাতে পারেননি।

দ্বিতীয়ার্ধের পঞ্চম মিনিটে ডি-বক্সের ভেতরে ডান দিক থেকে হুয়ান কুয়ার্দাদোর কোনাকুনি শট দূরের পোস্টের কিছু বাইরে দিয়ে যায়। পরক্ষণেই ইউভেন্তুসের ডি-বক্সে ঢুকে লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নেন নেইমার। তবে বলের ৬৫ শতাংশ দখল রেখেও লক্ষ্যভ্রষ্ট শটের মহড়ায় বার্সেলোনার গোলে শট মোটে একটি। লক্ষ্যে চারটি শট নিয়ে এদিক থেকে এগিয়ে ইউভেন্তুস।

তবে শেষ বাঁশি বাজার খানিক আগে থেকেই পতাকা উড়িয়ে, গান গেয়ে দলের প্রতি সমর্থনের কথা জানিয়ে গেল তারা। তবে তাতে কি আর নুইয়ে পড়া বার্সেলোনার খেলোয়াড়দের কষ্ট কমে। কান্নায় ভেঙে পড়া স্বদেশী নেইমারকে সান্ত্বনা জানাতে এগিয়ে আসতে হলো বার্সেলোনা ছাড়ার পর প্রথমবারের মতো কাম্প নউতে খেলতে আসা দানি আলভেসকে।

ইউভেন্তুসের বাকি খেলোয়াড়রা তখন আনন্দে লাফাচ্ছে। ইতালিয়ান ক্লাবগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ সপ্তমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমি-ফাইনালে পৌঁছা দলটির সঙ্গী স্পেনের রিয়াল মাদ্রিদ, আতলেতিকো মাদ্রিদ ও ফ্রান্সের মোনাকো।
 

 

Publisher : Nasir