ঢাকা, রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫

2018-09-23

, ১২ মহাররম ১৪৪০

হাতপাখায় সাবলম্বী সাদুল্যাপুরের কারিগররা

প্রকাশিত: ১০:২১ , ২৩ জুলাই ২০১৮ আপডেট: ০৬:৪৬ , ২৩ জুলাই ২০১৮

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : পাখা তৈরীর গ্রাম গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর। নিপুন হাতের কারুকাজ আর সুই-সুতা দিয়ে তৈরী পাখা বিক্রি করে আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হয়েছে এ গ্রামের অনেকেই। বিশেষ করে গরমের সময়ে বেড়ে যায় এখানকার পাখার চাহিদা। সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা পেলে ভবিষ্যতে পাখা তৈরীর কারখানা স্থাপনের স্বপ্নও দেখেন সাদুল্যাপুর গ্রামের করিগররা।

এই গ্রামের নাম গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর খামারপাড়া হলেও, পাখার গ্রাম নামে এখন পরিচিত লাভ করেছে। এই গ্রামের নারী-পুরুষ সবাই মিলে বাঁশ, চাক, সুতা, কাপড় আর সুই দিয়ে সেলাই করে তৈরি করছে রং বে-রংয়ের ডিজাইন পাখা।

গরম বৃদ্ধির কারণে পাখা তৈরীতে দিনরাত ব্যস্ত সময় পার করছে কারিগররা। প্রতিদিন ১২শ’ থেকে ১৫শ’ পর্যন্ত হাত পাখা তৈরী করে এখানকার বাসিন্দারা। প্রতিটি পাখা তৈরী করতে খরচ পড়ে প্রায় ১২ থেকে ১৩ টাকা। তৈরীকৃত পাখা পাইকারি এবং বিভিন্ন হাট-বাজারে, দোকানে এবং মেলায় বিক্রি করা হয় ২৩ টাকা থেকে ২৫ টাকায়।

সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা ও সল্প সুদে ক্ষুদ্র ঋণ পেলে ভবিষ্যতে বড় ধরনের পাখা তৈরীর কারখানা করা সম্ভব বলে জানায় এর কারিগররা।

এদিকে হাত পাখা তৈরি ও বাজারজাত করার প্রশিক্ষণ ও সহজে ঋণ প্রদানে সব রকম সাহায্য সহযোগিতা করা হবে বলে জানালেন জেলা বিসিকের সহকারী মহা ব্যাবস্থাপক মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম।

এ শিল্প সম্প্রসারণে এগিয়ে আসবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এমনই প্রত্যাশা  গ্রামবাসীর।

 

এই বিভাগের আরো খবর

চাঁদপুর জেলা আঞ্চলিক পাসপোর্ট কার্যালয়ে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ

চাঁদপুর প্রতিনিধি: চাঁদপুর জেলা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে নিয়মবহির্ভূতভাবে অতিরিক্ত অর্থ আদায় আর নানা অনিয়মে ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is