ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

2018-12-14

, ৫ রবিউস সানি ১৪৪০

টেক্সটাইল খাতে ঢাকা-দিল্লির সহযোগিতা চায় বিজিএমইএ

প্রকাশিত: ০৯:৫৫ , ২১ জুলাই ২০১৮ আপডেট: ০৯:৫৫ , ২১ জুলাই ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ টেক্সটাইল ও পোশাক শিল্প খাতে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সহযোগিতার বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) সভাপতি এম সিদ্দিকুর রহমান।

তিনি বলেন, ‘আমরা যদি পরস্পরের পরিপূরক হতে পারি তাহলে সম্ভাবনার নতুন দিগন্ত পাব।’

শনিবার রাজধানীর বিজিএমইএ ভবনে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার ব্যবসায়িক (বিটুবি) বৈঠকে তিনি এ কথা বলেন।

দুদেশের মধ্যকার বাণিজ্য, বিশেষ করে টেক্সটাইল খাতে সম্পর্ক জোরদার করার জন্য ভারতের ২৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদল বাংলাদেশি পোশাক রপ্তানিকারকদের সাথে বিটুবি বৈঠকে বসে। প্রতিনিধিদলটি চার দিনের ব্যবসায়িক সফরে ঢাকায় রয়েছে।

তৈরি পোশাক রপ্তানিকারকদের সর্বোচ্চ সংস্থার প্রধান সিদ্দিকুর বলেন, ‘আমি আশা করি আগামীতে আমাদের দুদেশের মধ্যে আরো বেশি করে প্রতিনিধিদলের সফর বিনিময় হবে।’

তার মতে, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে দীর্ঘ সীমান্ত, অনেক শুল্ক বন্দর ও ভৌগলিক সুবিধা থাকলেও দুদেশের মধ্যকার বাণিজ্যিক সম্পর্ক এখনো আশানুরূপ ফল অর্জন করতে পারেনি।

আসলে ভারত আমাদের জন্য অত্যন্ত সম্ভাবনাময় বাজার। ভারতে মধ্যবিত্ত শ্রেণির দ্রুত বিকাশ হচ্ছে এবং তাদের ক্রয় ক্ষমতাও বাড়ছে। গ্লোবাল ব্র্যান্ড ও রিটেইলগুলো ভারতে দোকান খুলছে। তার ওপর এখানে পোশাক উৎপাদনের জন্য আমরা বেশির ভাগ তুলা, কাপড় এবং অন্যান্য উপকরণ ভারত থেকে আমদানি করি, যোগ করেন তিনি।

বিজিএমইএ সভাপতি জানান, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার বাণিজ্য প্রতিবছর বাড়ছে। তৈরি পোশাক পণ্যের শুল্কমুক্ত রপ্তানির কারণে গত বছর ভারতে রপ্তানি হয়েছে ২৭ কোটি ৯০ লাখ মার্কিন ডলার, যা পাঁচ বছর আগে ছিল মাত্র ৯ কোটি ৬০ লাখ মার্কিন ডলার।

তবে পেট্রাপোলসহ অন্যান্য স্থলবন্দরের সক্ষমতার অভাব ও দাম পরিশোধ না করার মতো কিছু প্রতিবন্ধকতা এ ক্ষেত্রে চ্যালেঞ্জ হিসেবে রয়ে গেছে বলে জানান তিনি।

 

এই বিভাগের আরো খবর

মন্ত্রিরা নির্বাচনী কাজে, বদলে গেছে সচিবালয়ের চেনা দৃশ্য

নিজস্ব প্রতিবেদক : বেশ ঢিলেঢালা ভাবে চলছে প্রশাসনের কেন্দ্রবিন্দু সচিবালয়ের কাজকর্ম। নির্বাচনের এই সময়টাতে শুধুমাত্র মন্ত্রিদের রুটিন...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is