ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫

2018-09-19

, ৮ মহাররম ১৪৪০

মুক্তিযোদ্ধাদের ন্যূনতম বয়স নির্ধারণের পরিপত্র কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট

প্রকাশিত: ০৬:৫২ , ১৫ জুলাই ২০১৮ আপডেট: ০৬:৫২ , ১৫ জুলাই ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ১৯৭১ সালের ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত মুক্তিযোদ্ধাদের ন্যূনতম বয়স ১২ বছর ৬ মাস নির্ধারণ করে জারি করা পরিপত্র কেন আইনগত কর্তৃত্ববহির্ভূত ঘোষণা করা হবে না তা জানতে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

বাংলাদেশ ভূতাত্বিক জরিপ অধিদপ্তরের পরিচালক মাহমুদ হাসানের করা রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে রবিবার বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মো. আশরাফুল কামালের বেঞ্চ এ রুল জারি করেন।

একই সাথে সংশোধিত পরিপত্র অনুযায়ী মাহমুদ হাসানকে অবসরোত্তর ছুটিতে (পিআরএল-এ) যাওয়ার জন্য পাঠানো চিঠি কেন অবৈধ ঘোষণা হবে না তা জানতে চাওয়া হয়েছে। পাশাপাশি ওই চিঠির কার্যকারিতা ৬ মাসের জন্য স্থগিত করা হয়েছে।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার এবিএম আলতাফ হোসেন। তার সাথে ছিলেন আইনজীবী এআরএম কামরুজ্জামান কাকন ও শুভ্রজিৎ ব্যানার্জি।

রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একরামুল হক টুটুল।

মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়, এ মন্ত্রণালয়ের সচিব, বিদ্যুৎ-জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব, অর্থ সচিব, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের মহাপরিচালক, মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব ও বাংলাদেশ ভূতাত্বিক জরিপ অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

জানা যায়, ২০১৬ সালে প্রথমে এক গেজেট জারি করে বলা হয়, ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ পর্যন্ত মুক্তিযোদ্ধার ন্যূনতম বয়স হতে হবে ১৩ বছর। এরপর গত ১৭ জানুয়ারি একটা পরিপত্রের মাধ্যমে সে গেজেট সংশোধন করে বলা হয় ১৯৭১ সালের ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত মুক্তিযোদ্ধাদের ন্যূনতম বয়স হতে হবে ১২ বছর ৬ মাস। বাদী মাহমুদ হাসান ১৯৮৮ সালের ২৬ জুন মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ভূতাত্বিক জরিপ অধিদপ্তরে চাকরিতে যোগ দেন। তার জন্ম তারিখ অনুযায়ী ১৯৭১ সালের ৩০ নভেম্বর তার বয়স হয় ১২ বছর ৪ মাস ১২ দিন। এর পরিপ্রেক্ষিতেই ভূতাত্বিক জরিপ অধিদপ্তর গত ২ মার্চ এক অফিস আদেশে বাদীকে বলেন, ১৭ জুলাই তার বয়স ৫৯ বছর পূর্ণ হতে চলেছে। সরকারি বিধি অনুযায়ী ১৮ জুলাই থেকে তার অবসর উত্তর ছুটি (পিআরএল) শুরু হবে। এ অবস্থায় তিনি ছুটি ভোগ করতে চাইলে তাকে আবেদন করতে বলা হয়।

পরে আইনজীবী আলতাফ হোসেন বলেন, পাবলিক সার্ভিস রিটায়ারমেন্ট অ্যাক্ট ১৯৭৪ অনুযায়ী মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তার ৬০ বছর পর্যন্ত চাকরির সুযোগ পাওয়ার কথা। কিন্তু মুক্তিযোদ্ধাদের ন্যূনতম বয়স নির্ধারণ করে দেয়ায় সে সুযোগ থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে যা পাবলিক সার্ভিস রিটায়ারমেন্ট অ্যাক্ট ১৯৭৪ এর ৪(এ) এবং সংবিধানের ১৫০(২) অনুচ্ছেদের সাথে সাংঘর্ষিক। গত সপ্তাহে হাইকোর্টে রিট করা হয়। আদালত শুনানি নিয়ে রুল ও স্থগিতাদেশ জারি করেন।

 

এই বিভাগের আরো খবর

ডাকসু নির্বাচন: আদালত অবমাননার মামলা কার্যতালিকা থেকে বাদ

নিজস্ব প্রতিবেদক: হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী ছয় মাসের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন না করায় বিশ্ববিদ্যালয়ের...

খালেদার অনুপস্থিতিতে দুর্নীতি মামলার বিচার নিয়ে আদেশ ২০ সেপ্টেম্বর

নিজ প্রতিবেদক : খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার বিচারকাজ চলবে কি না এবং তার জামিন বর্ধিত হবে কি না এ বিষয়ে ২০...

সংসদে তিনটি বিল পাস

নিজস্ব প্রতিবেদক : ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়ার সভাপতিত্বে জাতীয় সংসদ অধিবেশনে বুধবার তিনটি বিল পাস হয়েছে। বরেন্দ্র এলাকার সার্বিক...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is