ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫

2018-11-15

, ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

প্রভাবশালী দালাল চক্রের কারণে রেজিষ্ট্রি অফিস অসহায়

প্রকাশিত: ০৯:৫০ , ০৫ জুলাই ২০১৮ আপডেট: ১২:০৩ , ০৫ জুলাই ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: ভূমি নিয়ে এসব বিরোধ কমাতে এবং নাগরিক সেবার মান বাড়ানোর জন্য ২০১০ সালে রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া ডিজিটালাইজ করার উদ্যোগ নেয় সরকার। কিন্তু আন্ত মন্ত্রনালয়ের সমন্বয়হীনতায় ওই প্রকল্প পালে হাওয়া পায়নি। এছাড়া রেজিষ্ট্রি অফিস কেন্দ্রিক দালাল চক্রও এতটাই প্রভাবশালী যে কর্তৃপক্ষ অসহায়।
তেজগাঁও রেজিস্ট্রেশন কমপ্লেক্সের সবচেয়ে মূল্যবান কক্ষ এটি। এখানেই সংরক্ষিও শতবছর আগেও দলিলের বালাম বই। গত আট বছরে এখানে চুরি হয়েছে ৩ বার, আর আগুন লেগেছে ২ বার। কিন্তু এর পরও অবহেলায় পড়ে আছে কক্ষটি।
একটুখানি বৃষ্টি হলেই ছাদ চুইয়ে পানি পড়ে ভিজেযায় মূল্যবান এসব নথি। আর এখানে কাজ করেন যারা তারা কেউই রেজিস্ট্রি অফিসের নিয়োগপ্রাপ্ত কর্মচারী নয়। সেবা পেতে আসা সাধারণ মানুষদেও জিম্মি করে বালামের নকল দেয়ার অযুহাতে মোটা অঙ্ক হাতিয়ে নেয় তারা। আবার বালাম চুরি বা পাতা কেটে নিয়ে যায়ও তারা। শুধু রেকর্ড কিপারের কমিশন দিলেই সব যায়েজ হয়ে যায়।
এসব অভিযোগ অস্বীকার করলেও বিরোধীতা করেননি খোদ ঢাকার জেলা রেজিস্ট্রার। নিরাপত্তা কর্মী সংকটসহ নিজস্ব স্টাফ সংকটের কথা বললেন রেজিস্ট্রেশন অধিদপ্তরের মাহাপরিচালকও।
আর দালাল চক্র এবং দলিল লেখক সিন্ডিকেটের বিষয়ে তাদের কাছে তথ্য আছে তবে প্রমানের অভাবে ব্যবস্থা নিতে পারছেন না বলে নিজেদেও অসহায়ত্ব প্রকাশ করেন।
রেজিস্ট্রি অফিসের কর্মকাণ্ড ডিজিটালাইজ কারার যে প্রকল্প ২০১০ সালে সরকার হাতে নিয়েছিলো তা থেমে যায়নি, পর্যায়ক্রমে এগুচ্ছে বলে জানান মহাপরিচালক।
এছাড়া দলিল লেখদের লাইসেন্স দেয়ার ক্ষেত্রে সরকারের প্রভাবশালীদের সুপারিশের কারণে মানা সম্ভব হচ্ছে না বলে জানান তারা।

 

এই বিভাগের আরো খবর

পোষ্টার ব্যানারে ছেয়ে গেছে ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা বিভাগীয় নির্বাচনী আসন গুলোতে, হোক তা শহরে কিংবা প্রত্যন্ত অঞ্চলে, পোষ্টার ব্যানারে ছেয়ে গেছে এরই মধ্যে। কর্মব্যস্ত...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is