ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

2018-11-20

, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

বন্যার্ত এলাকায় নামছে পানি, বাড়ছে দুর্ভোগ

প্রকাশিত: ০২:২১ , ২১ জুন ২০১৮ আপডেট: ০৫:১৯ , ২১ জুন ২০১৮

ন্যাশনাল ডেস্ক : দেশের বিভিন্ন জায়গায় বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। চট্টগ্রাম, সিলেট, মৌলভীবাজার, লালমনিরহাটের বেশিরভাগ এলাকায় পানি নেমে যাওয়ায় রাস্তাঘাট, বাড়িঘর ও ফসলের ক্ষয়ক্ষতির চিত্র ভেসে ওঠছে। এদিকে, দুর্গত অনেক এলাকায় এখনও পৌঁছায়নি ত্রাণ ও পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট। ফলে শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ পানির সংকটে পড়েছে বানভাসী মানুষ।

গত ২৪ ঘন্টায় দেশের বিভিন্ন এলাকায় বন্যা পরিস্থিতির আরো উন্নতি হয়েছে। তবে, বন্যার পানি নেমে যাওয়ার পর ভেসে উঠছে- ক্ষয়ক্ষতির চিত্র। উজানে পানির ঢল কমে যাওয়ায় মৌলভীবাজারে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। তবে গৃহপালিত পশু ও গাছপালা মরে- পানিতে বেশ কিছুদিন ডুবে থাকায়, চারদিকে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। এদিকে, এসব দুর্গত এলাকায় দেখা দিয়েছে বিশুদ্ধ পানির অভাব।  

এদিকে, মৌলভীবাজার-কুলাউড়া সড়ক ও মৌলভীবাজার-সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়ক দিয়ে যান চলাচল শুরু হয়েছে। তবে পানির স্রোতে চাতলাপুর ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট সড়কের  একটি কালভার্ট দেবে যাওয়ায়, মৌলভীবাজারারের সাথে ইমিগ্রেশন চেকপোস্টের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। ফলে ব্যাহত হচ্ছে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে আমদানি রপ্তানি।

এদিকে, পানি উন্নয়ন বোর্ড জানায়, মৌলভীবাজার শহরের বড়হাটের বাড়ইকোনায় মনু নদীর ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিরক্ষা বাঁধ মেরামতের কাজ চলছে। এছাড়া, রাজনগরের কালাইরগুলে বাঁধের ভাঙ্গা অংশ দিয়ে পানি প্রবেশ বন্ধ করতে ১০ হাজার বালি ভর্তি বস্তা ফেলা হয়েছে। তবে, এখনও কুশিয়ারা নদীর পানি এখনও বিপদ সীমার ২৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

অন্যদিকে, তিস্তা নদীর পানি কমে যাওয়ায় লালমনিরহাটের বেশিরভাগ এলাকায় বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। তবে, দুর্গত এলাকায় এখনও পর্যাপ্ত ত্রাণ ও পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট পৌঁছায়নি বলে দুর্ভোগে পড়েছেন বানভাসীরা।

 

এই বিভাগের আরো খবর

কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া রুটে চারঘণ্টা পর ফেরি চলাচল শুরু

মাদারীপুর প্রতিনিধি: ঘন কুয়াশার কারণে কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া রুটে চার ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। শনিবার- ৪ নভেম্বর দিবাগত রাত...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is