ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫

2018-11-15

, ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু

প্রকাশিত: ০৯:৫১ , ৩০ মে ২০১৮ আপডেট: ১১:২৮ , ৩০ মে ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঈদকে সামনে রেখে শুরু হলো দূরপাল্লার বাসের আগাম টিকিট বিক্রি। সকাল ছয়টা থেকে রাজধানীর গাবতলী, কল্যাণপুর, টেকনিক্যাল, কলাবাগান ও সায়দাবাদ থেকে দেশের বিভিন্ন রুটের টিকিট বিক্রি শুরু হয়। প্রথম দিনেই গাবতলী কাউন্টারে দেখা গেছে উপচে পড়া ভিড়। তবে কাঙ্ক্ষিত টিকিট না পাওয়ার অভিযোগ করেছেন অনেকে। যদিও বাস কর্তৃপক্ষ বলছে পর্যাপ্ত টিকিট রয়েছে তাদের হাতে। 

ঈদের বাকি আর ১৮ দিন। পরিবারের সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে বরাবরের মতোই এবারো রাজধানীবাসী ছুটবেন নাড়ির টানে। এ লক্ষ্যে বুধবার সকাল থেকে শুরু হয় বাসের আগাম টিকিট বিক্রি। সকাল থেকেই গাবতলীসহ বিভিন্ন কাউন্টারে টিকিট প্রত্যাশীদের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।

টিকিটের জন্য বাস টার্মিনালে রাত কাটিয়েছেন অনেকেই। আবার অনেকে মঙ্গলবার ইফতার করেই দাঁড়িয়েছেন লাইনে। শেষ পর্যন্ত কাঙ্ক্ষিত টিকিট পেয়ে আনন্দ প্রকাশ করেছেন তারা। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি চাহিদা ছিল ১৪ জুন রাতের টিকিটের।

তবে, টিকিট প্রত্যাশীদের অনেকের অভিযোগ বিক্রি শুরুর কয়েক মিনিটের মধ্যেই অনেক বাসের টিকিট শেষ হয়ে গেছে। ফলে কাঙ্ক্ষিত দিনের টিকিট পাচ্ছেননা তারা। দাম তুলনামূলক বেশি নেয়ার অভিযোগও রয়েছে।

তবে বাস কর্তৃপক্ষ বলছে পর্যাপ্ত টিকিট রয়েছে তাদের কাছে। পাশাপাশি যাত্রী ও বাসের নিরাপত্তায় এবারো সড়ক-মহাসড়কে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কড়া নাজরদারি আশা করছেন তারা।      

আজ থেকে শুরু হওয়া আগাম টিকিট বিক্রি চলবে আট দিন। 

গত ২৫ মে বাস-ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভায় আজ বুধবার থেকে বিভিন্ন রুটে চলাচলকারী দূরপাল্লার বাসের অগ্রিম ঈদ টিকেট বিক্রি শুরুর সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

এদিকে লঞ্চের অগ্রিম টিকেট বিক্রি মঙ্গলবার থেকেই শুরু হয়েছে। এছাড়া ১ জুন থেকে শুরু হবে রেলের অগ্রিম টিকেট বিক্রি।

এবার ঈদুল ফিতর উপলক্ষে আনুমানিক প্রায় ৭০ লাখ লোক রাজধানী ছাড়বেন। এর মধ্যে প্রায় ৫৫ শতাংশ বাসে, ২০ শতাংশ রেলে এবং ২৫ শতাংশ লঞ্চ-স্টিমারে করে গ্রামে থাকা স্বজনদের সাথে ঈদ করতে ঢাকা ছাড়বেন।

 

এই বিভাগের আরো খবর

পরিবহন ধর্মঘটে ভোগান্তি চরমে

নিজস্ব প্রতিবেদক : সড়ক পরিবহন আইন সংস্কারসহ ৮ দফা দাবিতে সকাল ৬টা থেকে সারাদেশে চলছে ৪৮ ঘণ্টার পরিবহন ধর্মঘট। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is