ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫

2018-11-14

, ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

ঢাকায় বিপদজ্জনক যানের নাম ব্যাটারিচালিত রিক্সা

প্রকাশিত: ০৯:৩২ , ১৮ মে ২০১৮ আপডেট: ১২:২২ , ১৮ মে ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকায় বিপদজ্জনক আরেক যানের নাম ব্যাটারিচালিত রিক্সা। নসিমন-করিমনের মতো এসব রিকশা চলাচলে উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকলেও প্রশাসনের চোখের সামনেই রাজধানীতে দেদার চলছে এই যান। অযান্ত্রিক রিকশাকে যান্ত্রিক করায় প্রায়ই দুর্ঘটনার মুখে পড়ছেন যাত্রীরা। বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির তথ্য অনুযায়ী, গেল বছর কেবল ব্যাটারিচালিত রিক্সার কারণে ৩২২টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। এ বছরের গেল চারমাসে ঘটেছে ৮৩টি দুর্ঘটনা।

দ্রুত বেগে ছুটে চললেও নেই উপযুক্ত নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা। ফলে দুর্ঘটনাই সঙ্গী ব্যাটারিচালিত এই রিক্সাগুলোর। এজন্যই এ রিক্সার অনুমোদন দেয়নি ঢাকার দুই সিটি-কর্পোরেশন। ফলে এসব রিক্সার হিসেবও নেই তাদের কাছে।

গেলো বছরের জুন মাসে নিয়ন্ত্রণহীন ও দুর্ঘটনা প্রবণ এমন যান না চালাতে নির্দেশ দেয় উচ্চ আদালত। আদালতের সেই নির্দেশ বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেই কারো। মাঠের চিত্র পুরোই উল্টো।

ঢাকার ব্যস্ত অলিগলি থেকে শুরু করে সড়কগুলোতেও এই যানের সরব উপস্থিতি। চলছে প্রশাসনের চোখের সামনেই।

বুয়েটের দুর্ঘটনা গবেষণা কেন্দ্র- এআরআইয়ের শিক্ষক কাজী সাইফুন নেওয়াজ বলছেন, ব্যাটারি দিয়ে চলার কারণে এসব রিক্সার গতি প্যাডেল রিক্সার চেয়ে অনেক বেশি। ফলে নিয়ন্ত্রণে রাখাও কঠিন। সামান্য উঁচু-নিচু বা হঠাৎ ব্রেক করলে উল্টে যায়।

যাত্রী কল্যাণ সমিতির তথ্য অনুযায়ী, সারাদেশে ১৩ লাখ ব্যাটারিচালিত রিক্সা চলছে। রাস্তায় নামার অপেক্ষায় আরো ৬ লাখ।

এদিকে, উত্তর সিটি কর্পোরেশন গুলশান, বনানী, বারিধারা ও নিকেতনের মতো অভিজাত এলকায় হাজার খানেক প্যাডেল রিক্সা চলাচলের অনুমতি দিলেও এসব এলাকায় ব্যাটারিচালিত রিক্সার সংখ্যাই বেশি।

নগরীর রাস্তায় দুর্ঘটনা রুখতে এবং মানুষের ঝুঁকিমুক্ত চলাচল নিশ্চিত করতে ব্যাটারিচালিত রিক্সা বন্ধ করার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

 

 

 

এই বিভাগের আরো খবর

পরিবহন ধর্মঘটে ভোগান্তি চরমে

নিজস্ব প্রতিবেদক : সড়ক পরিবহন আইন সংস্কারসহ ৮ দফা দাবিতে সকাল ৬টা থেকে সারাদেশে চলছে ৪৮ ঘণ্টার পরিবহন ধর্মঘট। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is