ঢাকা, রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

2018-11-18

, ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

মোহরানায় রয়েছে নারীর অধিকার

প্রকাশিত: ১২:৪৭ , ১৫ মে ২০১৮ আপডেট: ০২:৩৫ , ১৫ মে ২০১৮

ডেস্ক প্রতিবেদন: নারী ও পুরুষের বন্ধুত্ব, ভালোবাসা ও হৃদ্যতা তাদের একে অপর থেকে প্রশান্তি ও পরিতৃপ্তিকে একটি নির্দিষ্ট নিয়ম ও বিধানের আওতায় নির্ধারণ করে দিয়েছেন আল্লাহ। আর ‘আল্লাহর এমন করুণার অন্যতম একটি নিদর্শন হল তোমাদের জন্য তোমাদের আপন সত্তা থেকেই জুড়ি সৃষ্টি করেছেন। তার থেকে তোমরা প্রশান্তি লাভ কর। আর তোমাদের বুকে ভালোবাসা ও দয়া প্রদান করেছেন। নিশ্চয় এতে চিন্তাশীলদের জন্য নিদর্শন রয়েছে’।  

আর এটাই তার জন্য উৎকর্ষ ও পূর্ণতা অর্জনের ক্ষেত্র সৃষ্টি করে। আর এ কারণেই বিবাহের বন্দোবস্ত রেখেছেন। আর যা থেকে তিনি বিরত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন সেটা হল- অনাচার, ব্যভিচারে লিপ্ত হওয়া থেকে।

মানুষের সব ধরনের শান্তি, উন্নতি এবং অটুট কৃতিত্বের মৌলিক উপাদান হল- দাম্পত্য জীবন। বৈবাহিকবন্ধনে স্বামী তার স্ত্রীর সঙ্গে মিলনের অধিকার লাভ করে।

ইসলাম বিবাহবন্ধনে নারী জাতিকে মর্যাদার উচ্চাসনে বসিয়েছে। কোনো ব্যক্তি কোনো কন্যার অভিভাবকের কাছে বিয়ের প্রস্তাব দেবে এবং তার মোহরানা নির্ধারণের পর বিবাহ করবে।

পবিত্র কোরআনের ঘোষণা, ‘তোমরা সন্তুষ্ট চিত্তে স্ত্রীদের মোহরানা আদায় কর’। পবিত্র কোরআনের এ ঘোষণা নারীর প্রতি পুরুষের সম্মান প্রদর্শন। যে মোহরানার বিনিময়ে নারী-পুরুষ বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয় তাতে নারীর একক অধিকার।

স্ত্রীকে মোহরানা না দেয়া, দিতে গড়িমসি করা, ছলচাতুরী করা কিংবা কৌশলে স্ত্রীর মোহরানা মাপ করিয়ে নেয়া মারাত্মক গুনাহের কাজ। ইসলাম স্বামীকে স্ত্রীদের সম্পদ গ্রাস না করার জন্য নির্দেশ দিয়েছে। এমনকি মোহরানার অর্থও। তবে স্ত্রী যদি খুশিমনে তা স্বামীকে দেয় তাহলে তা নেয়া যায়, অন্যথায় নয়।

ইসলাম স্ত্রীকে স্বামীর চরিত্রের সনদ প্রদানের অধিকার দিয়েছে। এ মর্মে রাসূল (সা.) বলেছেন, ‘তোমাদের মধ্যে সে-ই উত্তম, যে তার স্ত্রীর কাছে উত্তম’।

যে স্বামী মোহরানার সম্মান দিয়ে স্ত্রীকে ঘরে নেন, সে স্ত্রী স্বামীর পরিবারে এসে সবাইকে সম্মানের দৃষ্টিতে দেখেন। আর যে স্বামী কোরআনের বিধান অমান্য এবং নৈতিক স্খলন ঘটিয়ে যৌতুক নিয়ে স্ত্রীকে ঘরে তোলেন মনস্তাত্ত্বিকভাবে সেই স্ত্রী অকুতোভয় হয়। রাসূল (সা.) বলেন, ‘তোমরা তাদের ধন-মালের লোভে পড়ে বিবাহ করবে না, কেননা এ ধন-মাল তাদের বিদ্রোহী ও অনমনীয় বানাতে পারে’।

 

এই বিভাগের আরো খবর

তেলাপোকার উৎপাতে অতিষ্ঠ?

ডেস্ক প্রতিবেদন: ছোট ছোট তেলাপোকাগুলো ঘরের বিভিন্ন জায়গায় যখন ঘুরে বেড়ায়, এদের তাড়াতে রীতিমতো যুদ্ধ করেও তেমন ‍উপকার পাওয়া যায় না। চাইলে...

ঘর থেকে জীবাণু দূর করার নিয়ম

ডেস্ক প্রতিবেদন: অনেকেই দিনের বেলা জানালায় পর্দা দিয়ে রাখেন। এমনকি সূর্যের আলো এসে ঘর গরম হয়ে যাবে, তা ভেবেও ভারী পর্দা ব্যবহার করেন অনেকে।...

হঠাৎ অদৃশ্য হয় যে প্রাণী

ডেস্ক প্রতিবেদন: সমুদ্রে কিছু প্রাণী অদৃশ্য হতে পারে। বিষয়টি নানা প্রশ্ন জাগায়। আসলে কি এমন প্রাণী আছে? হ্যাঁ, কিছু প্রাণী রয়েছে যারা নিজের...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is