ঢাকা, রবিবার, ২৪ মার্চ ২০১৯, ১০ চৈত্র ১৪২৫

2019-03-24

, ১৭ রজব ১৪৪০

প্রাচীন নিদর্শন বজরা শাহী মসজিদ

প্রকাশিত: ০৪:৫১ , ০৯ মে ২০১৮ আপডেট: ০৫:০৬ , ০৯ মে ২০১৮

ডেস্ক প্রতিবেদন: মোঘল সম্রাটগণ অবিভক্ত ভারতবর্ষ শাসনকালে নানা স্থানে দৃষ্টিনন্দন স্থাপত্য নির্মাণ করে গেছেন। নোয়াখালীর বজরা শাহী মসজিদ তৎকালীন স্থাপত্যশৈলীর অন্যতম একটি নিদর্শন। দিল্লীর বিখ্যাত জামে মসজিদের আদলে এটি নির্মিত হয়েছে। নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ী উপজেলার অন্তর্গত বজরা নামক স্থানে বজরা শাহী মসজিদ অবস্থিত।
ইতিহাস থেকে জানা যায়, মোঘল জমিদার আমান উল্লাহ আনুমানিক ১১৫৪ হিজরি সাল, ১১৩৯ বাংলা ও ইংরেজি ১৭৪১ সালে এটি নির্মাণ করেন। জমিদার আমান উল্লাহর বাড়ির সামনে ৩০ একর জমিতে খনন করা দীঘির পশ্চিম পাশে এর অবস্থান।
মসজিদের দৈর্ঘ্য ১১৬ ফুট এবং প্রস্থ ৭৪ ফুট। তিন গম্বুজবিশিষ্ট এই মসজিদের গম্বুজগুলো মার্বেল পাথরে মোড়ানো। ভেতরে রয়েছে নয়নাভিরাম কারুকাজ। এই কারুকাজ যে কাউকেই মোহিত করবে। মসজিদের ভেতরে রয়েছে মসজিদে নববীর মতো মেহরাব। মসজিদের প্রবেশ পথে ধনুক আকৃতির দরজায় রয়েছে ছোট ছোট গম্বুজ। ১৯০৯ সালে এ মসজিদটি একবার মেরামত করা হয়।  
মোঘল সম্রাট মোহাম্মদ শাহের বিশেষ অনুরোধে পবিত্র মক্কা শরীফের বাসিন্দা বিশিষ্ট আলেম হযরত মাওলানা শাহ আবু সিদ্দিকী এ ঐতিহাসিক মসজিদের প্রথম ইমাম ছিলেন। বর্তমানে ওই ইমামের সপ্তম পুরুষ মসজিদটির ইমাম হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।
কথিত আছে, এ মসজিদে কিছু মানত করলে ভালো ফল পাওয়া যায়। প্রতিদিন দূর-দূরান্ত থেকে হাজার হাজার মানুষ এসে এ মসজিদে দান, খয়রাত ও শিরনি দেন। অনেকে এসে এখানে নামাজ আদায় করেন। তাছাড়া দেশ বিদেশের বিভিন্ন পর্যটক এখানে আসেন ঐতিহাসিক মসজিদটি দেখার জন্য। মসজিদের ইমাম সাহেব কিংবা খাদেম দর্শনার্থীদের মসজিদের ইতিহাস ঐতিহ্য বিস্তারিত বলেন।
ছায়া সুনিবিড়, কোলাহলমুক্ত, সবুজের সমারোহের ফাঁক গলে দাঁড়িয়ে থাকা বজরা শাহী মসজিদ দেখতে আপনিও আসতে পারেন কিংবা দীঘির পাড়ে বসে মুক্ত বাতাসে কাটাতে পারেন কিছু ভালো সময়।
যেভাবে যাবেন: ঢাকা থেকে বাসে অথবা ট্রেনে করে নোয়াখালী জেলা শহর মাইজদিতে যাবেন। মাইজদি থেকে সোনাইমুড়ীগামী যেকোনো বাস/সিএনজি কিংবা অটোরিকশায় যাওয়া যায় ঐতিহাসিক বজরা শাহী মসজিদ।

 

 

এই বিভাগের আরো খবর

কেন বেড়াতে যাবেন দম্পতিরা

অনলাইন ডেস্ক: অফিস আর বাসার কাজে ব্যস্ত থাকতে থাকতে প্রায়ই আমরা বিরক্ত হয়ে উঠি। এমন অবস্থা থেকে নিজেকে একটু চাঙ্গা করতে ভ্রমণের বিকল্প নেই।...

ঘুরে আসুন লালনের মাজার

ডেস্ক প্রতিবেদন: ফকির লালন শাহের মাজার কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলায় অবস্থিত। লালন শাহ এই কুমারখালি উপজেলার ছেউড়িয়াতে তাঁর শিষ্যদের...

ঘুরে আসুন ঘাগুটিয়ার পদ্মবিলে

ডেস্ক প্রতিবেদন: বাংলাদেশে একসময় অনেক জায়গাতেই পদ্মফুলের দেখা গেলেও দিন দিন তা কমে যাচ্ছে। এখানে ব্যতিক্রম ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়া...

টানা তিন দিনের ছুটিতে পর্যটকের পদভারে মুখরিত কক্সবাজার

কক্সবাজার প্রতিনিধি: টানা তিন দিনের ছুটিতে দেশি-বিদেশি পর্যটকের পদভারে মুখরিত বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজার। জেলার অন্য বিনোদন...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is