ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫

2018-11-15

, ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

খেলাপী ঋণের পরিমাণ নিয়ে আছে শুভংকরের ফাঁকি

প্রকাশিত: ১০:০৪ , ০১ মে ২০১৮ আপডেট: ১১:২৫ , ০১ মে ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক : আর্থিক খাতের সবচেয়ে বড় অপরাধ খেলাপী ঋণ। তবু এই অপরাধের প্রতি বেসরকারি ও সরকারি কর্তা ব্যক্তিদের দৃষ্টিভঙ্গিতে পার্থক্য রয়েছে। কিছু কিছু চর্চা খেলাপী ঋণের সংস্কৃতি উৎসাহিত করে, যা কিনা উল্টো হবার কথা ছিল।

দেশের ব্যাংকিং খাত নিয়ে গবেষণাকারী প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট ইন্সটিটিউটের এক গবেষণায় দেখা যায় ব্যাংকিং খাতের সবচেয়ে বড় অপরাধ খেলাপী ঋণ। আর সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ের ব্যক্তিরা বলছেন, যতটা বলা হচ্ছে প্রকৃত পক্ষে খেলাপী ঋণের ভয়াবহতা ততোটা নয়।

সর্বশেষ খেলাপী ঋণের চিত্র কি কিংবা কত টাকা আটকে আছে খোলাপী ঋণ সংক্রান্ত মামলাগুলোর কারনে। এসব তথ্য চেয়ে বৈশাখী টেলিভিশনের পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাথে যোগাযোগ করা হলে আইনের বাধ্যবাধকতার কথা উল্লেখ করে তা দেয় নি। তথ্য আড়াল করার প্রবনোতা খেলাপী ঋণের সংস্কৃতি উৎসাহিত করছে বলে মনে করেন ব্যাংক পর্যবেক্ষকরা।

সকল ব্যাংকে দুর্নীতির চিত্র একই নয়। অনেক ব্যাংক ভাল করছে। ব্যাংকিং আস্থা নির্ভর ব্যবসা করে উল্লেখ করে ব্যাংক বিশ্লেষকরা বলছেন, অর্থনীতির স্বার্থেই দুর্নীতিগ্রস্ত ব্যাংক ও খেলাপী ঋণের হালনাগাদ তথ্য প্রকাশ করা উচিৎ। এতে গ্রাহক যেমন ব্যাংকে টাকা রেখে প্রতারিত হবার অশঙ্কা থেকে মুক্তি থাকবে তেমনি অন্যদিকে খেলাপীর নাম ও ছবি প্রকাশ হলে সামাজিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন হওয়ার ভয়ে কমবে খেলাপী হবার প্রবনোতা।

গবেষণায় দেখা গেছে, ঋণ নিয়ে আর ফেরত না দেয়ার মত বিষয়গুলো এখনও গর্হিত অপরাধ হিসেবে বিবেচনা করা হয় না সামাজিক, আর্থিক ও ব্যাংকের দৃষ্টিভঙ্গি থেকে।

 

এই বিভাগের আরো খবর

পোষ্টার ব্যানারে ছেয়ে গেছে ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা বিভাগীয় নির্বাচনী আসন গুলোতে, হোক তা শহরে কিংবা প্রত্যন্ত অঞ্চলে, পোষ্টার ব্যানারে ছেয়ে গেছে এরই মধ্যে। কর্মব্যস্ত...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is