ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫

2018-09-25

, ১৪ মহাররম ১৪৪০

তৈরি হচ্ছে কুটির শিল্পজাত পণ্য

প্রকাশিত: ০৮:৪৪ , ০৭ এপ্রিল ২০১৮ আপডেট: ০২:৩৬ , ০৭ এপ্রিল ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: গ্রামীণ বৈশাখী মেলা দেশজুড়ে বর্ষবরণ উৎসবের একটি বড় ঐতিহ্য। মেলায় স্থান পায় বিভিন্ন কুটির শিল্পজাত পণ্য এবং ঐহিত্যবাহী সব খাবার। এই আয়োজনে সবচেয়ে বেশি ব্যস্ত থাকতে হয় গ্রামীণ কুটির শিল্পীদের। অংশ নিতে নানা প্রস্তুতি নিয়ে দীর্ঘ প্রতীক্ষায় থাকে গ্রামীণ সংস্কৃতির ঐহিত্যবাহী পুতুল নাচ, যাত্রার পালা এবং বিভিন্ন সার্কাসের দল।

বাংলা বর্ষবরণ উৎসবের এই ভূখণ্ডের কৃষ্টি ও সংস্কৃতির নিবিড় সম্পর্ক। গ্রামের মাঠ পেড়িয়ে এই উৎসব ছড়িয়ে পড়েছে শহর ও নগরেও। কিন্তু বৈশাখী উৎসবে এই জনপদের ঐতিহ্যবাহী পণ্যগুলোই বেশি চাহিদা তৈরি করে।

উৎসবের সাজ-সজ্জায় যুক্ত হয় বাঁশ, বেত, পাট ও মাটির তৈরি বিভিন্ন কুটির শিল্পের পণ্য। বাঁশে তৈরি চালন, কুলা, বাঁশি, মাথাল, ডালা, হাতপাখা, একতারা দোতারা, ডুগডুগি ছাড়া যেমন মেলার সাজ পূর্ণ হয় না তেমনি পাটের শিকাতে মাটির হাঁড়ি না ঝুলালে কোথায় যেন ছেদ পড়ে। এজন্য এসব কুটির শিল্প তৈরির হিড়িক পরে বৈশাখী উৎসবের আগে। কুমিল্লা, নরসিংদী, কুস্টিয়াসহ দেশের বেশ কয়েকটি এলাকায়  একযোগে চলতে থাকে এসব হস্ত শিল্প তৈরি কাজ। কুটির শিল্পীরা জানান মূলত বৈশাখের উৎসবেই তাদের বেশি ব্যস্ত থাকতে হয়, ব্যবসাটাও ভালো হয় এই সময়েই।

বছরের প্রথম দিন মিষ্টি মুখ করিয়ে অতিথি আপ্যায়ন নববর্ষের প্রথা। একারণেই মিষ্টি জাতীয় খাবারও বৈশাখী উৎসবের একটি বিশেষ আকর্ষণ। চিনির তৈরি বাতশা, কদমা, নকুলদানা, কটকটি, খুরমা, নাড়– মুড়ি, চিড়া, জিলাপি নানা স্বাদের বাহাড়ী সব মিষ্টির আয়োজনও চলে পুরোদমে। গৃহস্থালীর সব কাজ কর্ম সেড়ে বৈশাখেরই বাহাড়ী সব খাবার তৈরিতে ব্যস্ত সময় পাড় করতে হয় কারিগরদের। আর পহেলা বৈশাখে অন্যতম আকর্ষণ  ইলিশেরও যোগর চলে নগরের অবস্থাপন্ন ঘরগুলোতে।

বৈশাখী মেলার আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ আয়োজন লোকজ সংস্কৃতির পালাগান, জাড়ি গান, পুতুল নাচ এবং যাত্রাপালা। মেলায় অংশ নিতে তাই অনেক আগে থেকেই বায়না এবং অনুশীলন শুরু করে দেয় সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো। নতুন নতুন পালাও তৈরি করেন দর্শকদের বিনোদনে।

খেলার প্রতিযোগীতাও বৈশাখী উৎসবের ঐতিহ্যপূর্ণ আয়োজন। নৌকাবাইচ, লাঠি এবং কুস্তি খেলার আয়োজন হয়।

   

 

এই বিভাগের আরো খবর

জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে সামাজিক ক্লাব প্রতিষ্ঠার চর্চা

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিদেশি ভাষা হলেও ক্লাব বললেই সবাই এর অর্থ বোঝে। দেশে নানা ধরনের ক্লাব রয়েছে। যেমন- খেলার ক্লাব, সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন...

চিংড়ি রপ্তানি মাত্র চারভাগের একভাগ, চাষে নেতিবাচক প্রভাব

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশে ৩৬ প্রজাতির চিংড়ি প্রকৃতিতে পাওয়া যায়। তার মধ্যে বাগদা ও গলদাসহ মাত্র পাঁচ প্রজাতির চিংড়ি চাষ করা সম্ভব হয়। চাষ থেকে...

দেশে পাঁচ প্রজাতির চিংড়ি চাষ, আধুনিকায়ন হলে বেশি উৎপাদন সম্ভব

নিজস্ব প্রতিবেদক: চিংড়ি চাষ খুব জটিল নয়, তবে নিরিড় পরিচর্যা দারুণ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এইখানটায় দুর্বলতা চাষের চার দশকেও দূর করা যায়নি। তবে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is