ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

2018-11-17

, ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

রাজধানীতে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে যানবাহন ও যানযট

প্রকাশিত: ০৯:২৪ , ০৩ এপ্রিল ২০১৮ আপডেট: ০২:০৫ , ০৩ এপ্রিল ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: ১৯৭১ সালে ৯ লাখ মানুষের ঢাকা শহর এখন পরিণত হয়েছে ২ কোটি মানুষের মহানগরে। ২০০০ সালের পর থেকে অস্বাভাবিকহারে সড়কে যানবাহন বেড়েছে। ফলে যানজটের ভয়াবহতা বেড়েছে কয়েকগুণ। যানজট কমার কোন লক্ষণ নেই। দূর ভবিষ্যতে কি হবে সড়কের বাস্তবতা?

দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে পুরাতন শহর ঢাকা। ইতিহাসবিদদের কারো করো মতে হাজার বছর আগে এই শহর হলেও লিখিতভাবে চারশ’ বছরের পুরানো বলা হচ্ছে। সেই সময় যানবহান বলতে ঘোরার গাড়ি ছিলো একমাত্র ভরসা। এর পর  ইঞ্জিনচালিত মোটরগাড়ি যাত্রা শুরু করে নবাব পরিবারের ব্যাক্তিগত ব্যবহারের জন্য আনা বাহন হিসেবে ১৯১০ সালের দিকে। একাত্তরের স্বাধীনতার পর আস্তে আস্তো বাড়তে থাকে গাড়ির সংখ্যা।

স্বাধীনতার আগে ঢাকা শহরের জনসংখ্যা তিন থেকে সাড়ে তিন লাখ ছিলো। স্বাধীন বাংলাদেশের রাজধানী হিসেবে যখন যাত্রা শুরু করে একাত্তরে, তখন ৯লাখ জনসংখ্যা ছিলো ঢাকায়। সেই সময়ে মুড়ির টিন ছিলো ইঞ্জিনচালি একমাত্র গণ পরিবহন। তবে রিকশা ও ঘোরার গাড়ি ছিলো জনপ্রিয় মাধ্যম। খুব অল্প সংখ্যক ব্যক্তিগত গাড়ি ছিলো। আর তখন বেশিরভাগ মানুয চলতো পায়ে হেটেই।

ঢাকার সেই চিত্র পাল্টে যেতে শুরু করে জনসংখ্যা বাড়ার সাথে সাথে। ৭১ সালের নয় লাখ জনসংখ্যা, দশ বছরের ব্যবধানে বেড়ে হয় প্রায় ৩৫ লাখ। তবে তখনো যানবাহন তেমন বাড়েনি ঢাকায়। নব্বই দশক ও বিংশ শতাব্দির শুরু পর্যন্ত, তেমন একটা যানজট ছিলো না এই শহরে। রাজধানী এখনকার ব্যস্ততম এলাকা ফার্মগেট, শাহবাগ, মতিঝিলের এমন চিত্রই খুব বেশিদিন আগের নয়। ২০০০ সালের আগে এমন চিত্র ছিলো এসব এলাকায়।
 
এর পর থেকেই শহরে ব্যক্তিগত গাড়ি বৃদ্ধির প্রতিযোগীতা নামলে আস্তে আস্তে যানজটের ভয়াবতা কয়েকগুণ বৃদ্ধি পায়। যার ধারবাহিকতায় বর্তমান ঢাকা শহরে পরিণত হয়।

এই বিভাগের আরো খবর

পোষ্টার ব্যানারে ছেয়ে গেছে ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা বিভাগীয় নির্বাচনী আসন গুলোতে, হোক তা শহরে কিংবা প্রত্যন্ত অঞ্চলে, পোষ্টার ব্যানারে ছেয়ে গেছে এরই মধ্যে। কর্মব্যস্ত...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is