ঢাকা, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯, ৭ বৈশাখ ১৪২৬

2019-04-19

, ১৩ শাবান ১৪৪০

শৃঙ্ক্ষলা ফেরাতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তদারকি বাড়ানোর পরামর্শ

প্রকাশিত: ০৯:৪০ , ০২ এপ্রিল ২০১৮ আপডেট: ১১:১০ , ০২ এপ্রিল ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক : ব্যাংকিং খাতের বর্তমান দুরাবস্থায় নতুন ব্যাংক খোলার অনুমতি না দিয়ে পুরানোগুলোর মান বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের যথাযথ তদারকির অভাবে ব্যাংকিং খাত নড়বড়ে হয়ে পড়েছে বলে তাদের বিশ্লেষণ। ব্যাংকিং খাতে আস্থা  হারানোর ফলে যদি আমানতের প্রবাহ কমে যায় তাহলে সার্বিকভাবে উৎপাদন খাতে ঋণের পরিমাণ কমে যেতে পারে। যা কাঙ্খিত প্রবৃদ্ধির লক্ষ্য অর্জনে বাধার সৃষ্টি করবে। এ খাত সুরক্ষায় এখনই যথাযথ পদক্ষেপ নেবার কথা বলেন এ খাত সংশ্লিষ্টরা।

বিআইবিএমের হিসেবে দেশের প্রায় ৪০ ভাগ বা ৩ কোটি মানুষ এখনও ব্যাংকিং সেবার বাইরে। এই বিশাল জনগোষ্ঠীকে সেবার আওতায় আনতে ৩টি নতুন ব্যাংক অনুমোদন দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। অন্যদিকে এত দিন সরকারি ব্যাংকের বেহাল অবস্থা থাকলেও অনেক বেসরকারি ব্যাংকেও তা ছড়িয়ে পড়েছে। তাই বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যারা এখনও ব্যাংকিং সেবার বাইরে রয়েছেন তাদের অন্তর্ভূক্ত করতে পুরানো ব্যাংকগুলোই যথেষ্ট। নতুন ব্যাংকের প্রয়োজন নেই।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ব্যাংকিং খাতে অনিয়ম আর জালিয়াতির যে রীতি চলছে নতুন ব্যাংক এলে তার ক্ষেত্র আরো প্রসারিত হবে। অর্থনীতিবিদরা বলছেন, প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে সেবার আওতায় আনতে জোর দিতে হবে এজেন্ট ব্যাংকিং এ।

পর্যবেক্ষকরা মনে করেন, এ খাতটি অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়নের কবলে পড়েছে। যা ব্যাংক খাত তো বটেই, সার্বিক অর্থনীতির জন্য অশনি সংকেত। এমন অবস্থা চলতে থাকলে কেবল আমানতকারী বা ব্যবসায়ীরাই ব্যাংকবিমুখ হবেন না, উৎপাদন, বিদেশি বিনিয়োগ ও ব্যবসা-বাণিজ্যেও নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

দীর্ঘদিন ধরে ব্যাংকিং খাতে চলে আসা স্বেচ্ছাচারিতা, গুরুতর অনিয়ম ও বিচ্যুতিকে উপেক্ষা করা সংকটকে গভীর করেছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। যে দুষ্টচক্র ব্যাংকিং খাতকে মারাত্মক ঝুঁকিতে ফেলে দিয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা না নিয়ে ব্যাংকিং খাতের সংকট দূর করা যাবে না।

ব্যংক ব্যবস্থাপনায় পেশাদারিত্ব নিশ্চিতে, রাজনৈতিক প্রভাব মুক্ত করা, ঋণ খেলাপিদের নাম ঘোষণা, কুঋণ দেওয়ার সঙ্গে জড়িত কর্মকর্তাদের নাম প্রকাশ এবং ব্যাংক ব্যবস্থাপনায় স্বচ্ছতা আনার পাশাপাশি ব্যাংক আইন সু-সংহত করা দরকার বলে মতদেন এ খাত সংশ্লিষ্টরা।

 

এই বিভাগের আরো খবর

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর পাল্টাতে থাকে রাজনীতির দৃশ্যপট

নিজস্ব প্রতিবেদক: আদর্শিক লড়াইয়ের জায়গায় বৈষয়িক প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তি বড় হয়ে উঠতে থাকলে এক সময় ছাত্র রাজনীতি ও আন্দোলন স্বাধীন বাংলাদেশে পথ...

ছাত্রদের টার্গেট করে হত্যা নির্যাতন চালায় পাকিস্তানীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা অঞ্চল কেন্দ্রিক ছাত্র রাজনীতি ও আন্দোলন স্বাধীনতার কেন্দ্রীয় সংগ্রামকে সরাসরি শক্তিশালী করেছে। একাত্তরের...

স্বাধীনতার সশস্ত্র সংগ্রামের নেতৃত্ব ছিল ছাত্র সমাজের হাতে

নিজস্ব প্রতিবেদক: আবারও আলোচনায় ছাত্র রাজনীতি। কারণ, কিছুদিন পরই দেশের দ্বিতীয় সংসদ খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ ডাকসু...

ছাত্রসংসদ চালু হলে এখানে বন্ধ হবে হানাহানির রাজনীতি

নিজস্ব প্রতিবেদক: ব্রিটিশ বিরোধী অন্দোলন থেকে শুরু করে মুক্তিযুদ্ধ ও সর্বশেষ স্বৈরাচার বিরোধী অন্দোলনে সিলেট বিভাগের ছাত্রনেতারা কাঁধে...

সিলেটের ছাত্র রাজনীতিতেও ঢুকে পড়েছে সুবিধা আদায়ের কৌশল

নিজস্ব প্রতিবেদক: ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলন থেকে পাকিস্তান প্রতিষ্ঠা, তৎপরবর্তীতে পাকিস্তান বিরোধী আন্দোলনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের জন্ম এবং...

ডাকসু নির্বাচন আশা জাগিয়েছে সিলেটের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে

নিজস্ব প্রতিবেদক: ডাকসু নির্বাচনের পুনরুজ্জীবন চাঞ্চল্য ও আশা জাগিয়েছে সিলেট অঞ্চলের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে। সেখানের অকেজো...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is