ঢাকা, সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

2018-11-19

, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

চা এর উৎপত্তি

প্রকাশিত: ০৫:১৭ , ৩১ মার্চ ২০১৮ আপডেট: ০৫:১৭ , ৩১ মার্চ ২০১৮

ডেস্ক প্রতিবেদন: আজ থেকে প্রায় ছয় হাজার বছর আগে যে চীনে চায়ের চাষ শুরু হয়েছিল।  তবে সে যুগে চা কিন্তু পানীয় হিসেবে পান করা হতো না। চা-পাতাকে শাক হিসেবে খাওয়া হতো। পনের শত বছর আগে চীনে চা পানীয় হিসেবে গ্রহণ করা শুরু হয়। পঞ্চম শতকের দিকে চীনারা উপলব্ধি করে, চা-পাতা গরম করে পানিতে মিশিয়ে নিলে চমৎকার এক পানীয় তৈরি হয়। চীনারা এই পানীয়ের নাম দেয় ‘মৌচা’।

পানীয় হিসেবে মৌচা দ্রুতই জনপ্রিয় হয়ে ওঠে, যার প্রভাব পড়ে চীনের পাশের দেশ জাপানেও। নবম শতকে টাং সাম্রাজ্যের সময় একজন বৌদ্ধ ভিক্ষু প্রথম চীন থেকে একটি চা-গাছ নিয়ে জাপানে গেলে সেখানেও চা পানের সংস্কৃতির প্রচলন হয়।

ষোড়শ শতাব্দীর প্রথম দিকে ওলন্দাজ বণিকেরা বিপুল পরিমাণে চা চীন থেকে ইউরোপে আমদানি করে। তবে বর্তমান সময়ের অনেক ঐতিহাসিকের মতে, চীন বা ওলন্দাজেরা নয়, চাকে ঘরে ঘরে পৌঁছে দেওয়ার কৃতিত্ব যুক্তরাজ্যের রাজা দ্বিতীয় চার্লসের স্ত্রী রানি ক্যাথেরিন দ্য ব্রাগাঞ্জার। ১৬৬১ সালে রাজা চার্লসকে বিয়ে করে যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমানোর সময় রানি ক্যাথেরিন সঙ্গে নিয়ে আসেন একগাদা চা-পাতা আর তাঁর হাত ধরেই যুক্তরাজ্যের রাজদরবার হয়ে সেনাছাউনিগুলোতে পানীয় হিসেবে চায়ের প্রবেশ ঘটে।

যুক্তরাজ্যের সেনাদের বিশ্বজয়ের সঙ্গে সঙ্গে চা পৌঁছে যেতে থাকে পৃথিবীর প্রতিটি প্রান্তেই। সতেরো শতকের মাঝামাঝি ভারতবর্ষ থেকে যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের প্রায় সব মহাদেশেই চা জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।
 

এই বিভাগের আরো খবর

তেলাপোকার উৎপাতে অতিষ্ঠ?

ডেস্ক প্রতিবেদন: ছোট ছোট তেলাপোকাগুলো ঘরের বিভিন্ন জায়গায় যখন ঘুরে বেড়ায়, এদের তাড়াতে রীতিমতো যুদ্ধ করেও তেমন ‍উপকার পাওয়া যায় না। চাইলে...

ঘর থেকে জীবাণু দূর করার নিয়ম

ডেস্ক প্রতিবেদন: অনেকেই দিনের বেলা জানালায় পর্দা দিয়ে রাখেন। এমনকি সূর্যের আলো এসে ঘর গরম হয়ে যাবে, তা ভেবেও ভারী পর্দা ব্যবহার করেন অনেকে।...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is