ঢাকা, সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

2018-11-19

, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

কোচিং সেন্টারগুলোর প্রাতিষ্ঠানিক সরকারি সনদ নেই

প্রকাশিত: ১১:১২ , ১৩ অক্টোবর ২০১৭ আপডেট: ১১:৫৯ , ১৩ অক্টোবর ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক: শত শত বা হাজার হাজার কোচিং সেন্টার থাকলেও কোচিং সেন্টার হিসেবে কোনো প্রতিষ্ঠানের সরকারি অনুমোদন নেই। শিক্ষা-সহায়ক প্রতিষ্ঠান হিসেবে কেউ কেউ সিটি কর্পোরেশন থেকে এক ধরনের অনুমোদন নেয়। ফলে দেশে কতসংখ্যক কোচিং সেন্টার আছে তার কোন পরিসংখ্যান কোথাও নেই। গাইড বই প্রকাশেও কোন ধরনের আইনি বাধ্যবাধকতা বা নিয়মকানুন পালনের বালাই নেই। তবে, সরকার শিক্ষানীতির আলোকে প্রথম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত কোচিং সেন্টার ও গাইড বই নিষিদ্ধের উদ্যোগ নিচ্ছে।

শিক্ষা সহায়ক প্রতিষ্ঠানের নামে সিটি কর্পোরেশনের কাছ থেকে যে অনুমোদন নেওয়া হয়, তা আসলে এক ধরণের ব্যবসায়িক ও বাণিজ্যিক কর্মকান্ডের সনদ। গড়ে তোলা হয় কোচিং সেন্টার। এমনই একজন উদ্যোক্তা তারপরও কোচিং সেন্টারকে সম্পূর্ণ বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান বলতে নারাজ।এরসাথে দ্বিমত আছে শিক্ষাখাত বিশেষজ্ঞদের।

এই কোচিং সেন্টার ব্যবসা বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যেন কোনো কিছুই করার নেই। শিক্ষামন্ত্রী বলছেন, তাদের অসহায়ত্ব ও নতুন আইনি উদ্যোগের কথা। শিক্ষাখাত বিশেষজ্ঞরা বলছেন এক্ষেত্রে প্রশাসনিক ব্যর্থতা চরম।

কোচিং সেন্টার ও গাইড বইয়ের উপর নির্ভরতা কমাতে নানা ধরনের পরামর্শ রয়েছে শিক্ষাখাতের বোদ্ধাদের।  এমনকি কোচিং সেন্টার বাণিজ্যের উদ্যোক্তাদের মতেও শিক্ষার মান উন্নয়নের কোনো বিকল্প নেই।

কেউ কেউ সার্বিক শিক্ষার মান নেমে যাওয়ার পাশাপাশি শিক্ষকদের মান উন্নয়ন ও মূল্যায়নের বিষয়টি নিয়ে গুরুত্বের সাথে কাজ করার বিশেষ তাগিদ দিয়েছেন।

শিক্ষাবিদ ও সংশ্লিষ্টখাতের গবেষকদের পর্যবেক্ষণ, শুধুমাত্র আইন করে কোচিং সেন্টার বা গাইড বইয়ের বিরুদ্ধে অবস্থান নিলেই কাঙ্ক্ষিত সুফল পাওয়া যাবে না। একটি বিশৃঙ্খল শিক্ষাখাতকে সুপরিকল্পিতভাবে সাহসিকতার সাথে শৃঙ্খলায় আনতে হবে, সুদূরপ্রসারী স্থায়ী পরিকল্পনা করে তার বাস্তবায়ন করতে হবে।
   

এই বিভাগের আরো খবর

পোষ্টার ব্যানারে ছেয়ে গেছে ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা বিভাগীয় নির্বাচনী আসন গুলোতে, হোক তা শহরে কিংবা প্রত্যন্ত অঞ্চলে, পোষ্টার ব্যানারে ছেয়ে গেছে এরই মধ্যে। কর্মব্যস্ত...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is