ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৭, ৯ কার্তিক ১৪২৪, ৩ সফর ১৪৩৯

স্বপ্নের জয় শততমে এসে

প্রকাশিত: ০২:৪৭ , ২০ মার্চ ২০১৭ আপডেট: ০২:৪৭ , ২০ মার্চ ২০১৭

ক্রীড়া প্রতিবেদক: শততম টেস্টে স্বপ্নের জয় পেলো বাংলাদেশ। কলম্বোতে মাইলফলক স্পর্শ করা ‘জয় বাংলা’ সিরিজের এ টেস্টে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে বাংলাদেশ তুলে নিলো ঐতিহাসিক এক জয়। অস্ট্রেলিয়া, পাকিস্তান এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজের পর চতুর্থ দল হিসেবে বাংলাদেশ শততম টেস্টে জয়ের দেখা পেলো।

শ্রীলঙ্কার দেয়া ১৯১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে তামিম ইকবালের গুরুত্বপূর্ণ ৮২ রানে জয়ের বন্দরে পৌঁছে বাংলাদেশ। তামিম ইকবাল ম্যাচসেরা এবং সাকিব আল হাসান সিরিজসেরা হয়েছেন। টেস্টে দেশের বাইরে এটি বাংলাদেশের চতুর্থ জয়। এ নিয়ে বাংলাদেশ নবম টেস্ট জয়ের দেখা পেলো। 

এমন হরিষে-বিষাদে ভরা জন্মদিন বোধহয় খুব একটা আসেনি লঙ্কান অধিনায়ক রঙ্গনা হেরাথের জীবেন। বাংলাদেশের কিশোর ব্যাটসম্যান মেহেদী মিরাজ জয়সূচক রানটি তুলে নেন স্বাগতিক অধিনায়কের বলেই। 

স্বপ্নের এই জয় বাংলাদেশের ক্রিকেটকে নিয়ে গেছে আরো একটু উচ্চতায়। ক্রিকেট বিশ্বের বুকে গর্বিত করেছে লাল-সবুজের পতাকাকে।এ জয় কোনো সাধারণ উপলক্ষ নয়, ক্রিকেটের অভিজাত খেলা টেস্টের শততম ম্যাচের মাইফলক স্পর্শ করা ঐতিহাসিক জয়। সংখ্যার হিসেবে অন্য দশটি ম্যাচের মতোই মনে হতে পারে। কিন্তু, টেস্ট পরিবারের সর্বকনিষ্ঠ সদস্য বাংলাদেশ শততম ম্যাচটিতে জয় দিয়ে সমৃদ্ধ করেছে নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসকে। সেই সাথে জয়গাথায় স্মরণীয় করে রাখলো ‘জয় বাংলা’ টেস্ট সিরিজ। 

এ মাঠেই টেস্টে নিজেদের যাত্রা শুরু করেছিলো শ্রীলঙ্কা। দ্বীপদেশটির সবচেয়ে প্রাচীন স্টেডিয়ামও এটি। তাই বাংলাদেশের শততম টেস্ট ম্যাচটি আয়োজন করা হয় পি. সারা ওভালে।

প্রথম দিন থেকেই ম্যাচে জয়ের স্বপ্ন জাগিয়ে রেখেছিলো বাংলার এগারো লড়াকু ক্রিকেটার। স্বপ্নের সেই বীজকে পঞ্চম দিনে এসে ফলে পরিণত করলেন মুশফিক, সাকিব, তামিমরা।

পঞ্চম দিনে দ্বিতীয় ইনিংসে শ্রীলঙ্কা ৩১৯ রানে অলআউট হলে, বাংলাদেশের সামনে জয়ের লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৯১ রান। হাতে আড়াই সেশন ও ১০ উইকেট। সতর্কতার সাথে খেললে জয় পাওয়া অবশ্যই সম্ভব, তবে ইতিহাস গড়া জয়ের দিনে বাংলাদেশের শুরুটা ছিলো অন্ধকার।

সৌম্য সরকার ও ইমরুল কায়েসকে ফিরিয়ে লঙ্কানদের আশার আলোটা জ্বালিয়ে রেখেছিলেন রঙ্গনা হেরাথ। তবে, সাব্বির রহমানকে নিয়ে তামিম ইকবালের ব্যাট বেশ ভালোভাবে শাসন করে স্বাগতিক বোলারদের। দু’জনের ১০৯ রানের জুটিতেই বাংলাদেশের জয়ের আশা উজ্জ্বল হয়।

জন্মদিনের একদিন আগে, আগাম উপহার হিসেবে তামিম তুলে নেন টেস্ট ক্রিকেটের ২২তম অর্ধশতক। তিনি ৮২ রানে আউট হন। তবে ততক্ষণে জয়ের মঞ্চ তৈরি করে নিয়েছে লাল-সবুজের দল। সাকিব ১৫ ও মোসাদ্দেক ১৩ রানে আউট হলে স্বপ্নজয়ের পথ পাড়ি দিতে একটু দেরি হয় বাংলাদেশের।

কিন্তু অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম দায়িত্বশীল ২২ রানে অপরাজিত থেকে লঙ্কা জয় করেন। সিংহের ডেরায় শোনা যায় বাঘের গর্জন। টেস্টে এটি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রথম জয়। 
সিংক: মুশফিকুর রহিম, অধিনায়ক, বাংলাদেশ টেস্ট দল 

এ জয়ে ১-১ ব্যবধানে সিরিজে সমতা আনলো বাংলাদেশ। শততম টেস্টে জয়ের এ আনন্দে শামিল শুধু বাংলাদেশ ক্রিকেট দলই নয়, দেশের ১৬ কোটি বাঙালির প্রত্যেকেই। 

 

এই সম্পর্কিত আরো খবর

দক্ষিণ আফ্রিকায় পারফরম্যান্স বাংলাদেশের জন্য বড় সতর্কবার্তা : মাশরাফি

ক্রীড়া প্রতিবেদক: দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্স দেশের ক্রিকেটের জন্য বড় সতর্কবার্তা বলে মনে করছেন ওয়ানডে...

মুম্বাইয়ে প্রথম ওয়ানডেতে ভারতকে হারিয়ে এগিয়ে গেলো নিউজিল্যান্ড

ক্রীড়া ডেস্ক: মুম্বাইয়ে প্রথম ওয়ানডেতে স্বাগতিক ভারতকে ৬ উইকেটে হারিয়ে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেছে নিউজিল্যান্ড। ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is